• শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
ঈদের ২য় দিনে শতভাগ কোরবানির বর্জ্য অপসারণ ডিএনসিসির বিসিক চামড়া শিল্প নগরীর সিইটিপি প্রস্তুত : শিল্প সচিব আজ থেকে নতুন সময়সূচিতে চলবে সরকারি অফিস হাসপাতাল ভিজিট করে ডাক্তার হিসেবে লজ্জা লাগছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবার আছাদুজ্জামানের দুর্নীতি তদন্তে নামছে দুদক? কবি অসীম সাহার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক সেন্টমার্টিন দ্বীপ নিয়ে স্বার্থান্বেষী মহলের গুজবে বিভ্রান্ত হবেন না: আইএসপিআর ঈদ কেন্দ্র করে বাড়ল রিজার্ভ চামড়া কেনায় মিলছে ২৭০ কোটি টাকা ঋণ দুই সিটিতে কুরবানির বর্জ্য অপসারণে প্রস্তুত ১৯ হাজার কর্মী দুর্নীতি করে, কাউকে ঠকিয়ে সফল হওয়া যায় না: এলজিআরডি মন্ত্রী আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি: প্রধানমন্ত্রী বিজিবি পুলিশকে সতর্ক থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্মার্ট হচ্ছে কৃষি জুনের ১২ দিনে প্রবাসীরা ১৪৬ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন পদ্মা সেতুতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ, বঙ্গবন্ধুতে নতুন রেকর্ড পাস হতে পারে ঋণের কিস্তি ছাড়ের প্রস্তাব সারা দেশে অভিযানের নির্দেশ জনশক্তি নিতে আজারবাইজানকে অনুরোধ সরে গেছে মিয়ানমারের জাহাজ

সংসদ নির্বাচনের জোর প্রস্তুতি

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ৩৭ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জোর প্রস্তুতি চলছে নির্বাচন কমিশনে। শুরু হয়েছে নির্বাচনী কেনাকাটাও। নির্বাচনের ব্যালট পেপার ছাপতে প্রায় ৭০০ টন কাগজ অর্ডার করেছে নির্বাচন কমিশন। আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের অন্যান্য মালামাল কেনা নিয়ে বৈঠকে বসছে ইসি সচিবালয়। চলতি বছরের ডিসেম্বর বা আগামী বছরের শুরুতে সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ইসি কেনাকাটা শুরু করেছে।

এদিকে নির্বাচন কমিশন আগামী বাজেটে মোট ৫ হাজার ৪৮৫ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়েছে। এর মধ্যে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ইভিএম মেরামত, ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও বিভিন্ন স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচনের জন্য আগামী অর্থবছরে ৩ হাজার ৯৫৪ কোটি টাকা বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ১ লাখ ১০ হাজার ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) মেরামতের জন্য চাওয়া হয়েছে ১ হাজার ২৫৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা। গতকাল অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক বৈঠকে ইসি এ বরাদ্দ চেয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় ও ইসি সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবারে নির্বাচনী ব্যয় দ্বিগুণের বেশি হচ্ছে। কেননা ২০১৮ সালে সংসদ, উপজেলা ও সিটি নির্বাচনের জন্য মাত্র দেড় হাজার কোটি টাকা চাওয়া হয়েছিল।

এবারের সেই ব্যয় দ্বিগুণের বেশি হচ্ছে। ইসির কর্মকর্তারা বলছেন, চলতি বছরের ডিসেম্বর থেকে জানুয়ারির মধ্যে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ঈদুল ফিতরের পরপরেই গাজীপুর, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট ও বরিশাল সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আগামী বছরে মার্চে হবে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনও। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, বাজেট বরাদ্দ নিয়ে অর্থসচিবের সভাপতিত্বে ত্রিপক্ষীয় (অর্থ মন্ত্রণালয়, ইসি ও পরিকল্পনা কমিশন) বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে আগামী সংসদ নির্বাচন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও কিছু স্থানীয় সরকার নির্বাচনের জন্য ৩ হাজার ৯৫৪ কোটি ৪০ লাখ ৫ হাজার টাকা বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ব্যয়ের খাত আরেকটু সুনির্দিষ্ট করে দেওয়ার জন্য তাদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। অন্য বিষয়ে বরাদ্দ নিয়ে সমস্যা নেই, ইসি যেভাবে চেয়েছে সেভাবে হয়েছে। শুধু নির্বাচনী বাজেট নিয়ে কিছু মতপার্থক্য থেকে গেছে। ইসির কর্মকর্তারা জানান, ২০১৮ সালে একাদশ সংসদ নির্বাচন, পরের অন্যান্য নির্বাচনের জন্য সরকারের কাছ থেকে দেড় হাজার কোটি টাকা চেয়েছিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তখন সংসদ নির্বাচনের জন্য সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছিল ৬০০ কোটি টাকার মতো। এ ছাড়া সিটি নির্বাচন ও পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের জন্য ৬০০ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছিল। আর জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য আরও ৩০০ কোটি টাকার বরাদ্দ চাওয়া হয়েছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর