• বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
অবৈধ হাসপাতালের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান সংকটের মধ্যে রেমিট্যান্সে আশার আলো: বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন বৈদেশিক ঋণের প্রতিশ্রম্নতি ও অর্থছাড় বেড়েছে প্রাথমিকের প্রথম ধাপের চূড়ান্ত ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ২ হাজার ৪৯৭ চ্যালেঞ্জে ১১ হাজার কোটি ডলারের লক্ষ্য নিরূপণ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হলেন ৫০ নারী, গেজেট আজ ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান অনেকটা উপেক্ষিত: প্রধান বিচারপতি পঙ্কজ উদাসের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শোক বাংলাদেশ আর্থ-সামাজিক সূচকে অনেক উন্নত দেশের চেয়েও এগিয়ে মাদক সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠনে কাজ করুন সলঙ্গায় মহিলা আ.লীগের ৫৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত আগামী চার মাসে প্রাথমিকে নিয়োগ হবে ১০ হাজার শিক্ষক স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকার সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়ন অনেক দেশের অনুপ্রেরণা ২৪ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা বস্ত্রখাতে বিশেষ অবদান, সম্মাননা পাচ্ছে ১১ সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান সম্পর্কের নতুন অধ্যায় শুরু করতে আগ্রহী বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সংরক্ষিত ৫০ নারী আসনে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী সম্মানী ভাতা বাড়ল কাউন্সিলরদের ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশে প্রাণিজ প্রোটিনের অভাব হবে না’

বাংলাদেশ ব্যবসার জন্য গুরুত্বপূর্ণ জায়গা : ইইউ রাষ্ট্রদূত

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ৪৭ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : বুধবার, ১৫ মার্চ, ২০২৩

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ককে চোখে চোখ রাখা সম্পর্ক বলে অবহিত করেছেন বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি। ইউক্রেন যুদ্ধে বাংলাদেশ ইউরোপের পাশে দাঁড়াবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশে ইউরোপের বিনিয়োগে একটি উইন-উইন সিচুয়েশন তৈরি হবে। বাংলাদেশ ব্যবসার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গা।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন-বাংলাদেশের মধ্যে ৫০ বছর সম্পর্কের পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এখানে (বাংলাদেশে) অনেক ইউরোপীয় কম্পানি রয়েছে, যারা ব্যবসা করে অনেক টাকা কামিয়েছে। অতীতেও ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যু একটা বড় ইস্যু। এই ইস্যুতে আমরা চেষ্টা করছি ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে একই সঙ্গে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে। তিন কোটি রোহিঙ্গা দেশে আসছে। এটা একটা বড় সংখ্যা।’

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক সম্পর্কবিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশের বাজার পুরোপুরি রপ্তানিযোগ্য নয়। আমাদের রপ্তানিযোগ্য পণ্যও আমদানি করতে হয়। এ জন্য আমাদের ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ দরকার। মজুরি বাড়বে না, যদি না উৎপাদন বাড়ে, উৎপাদন বাড়বে না যদি না পর্যাপ্ত কাঁচামাল না বাড়ে।’

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রিসার্চ অ্যান্ড পলিসি ইন্টিগ্রেশন (র‌্যাপিড) চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের এই অংশীদারির ভবিষ্যৎ কী সেটা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। ১৯৭৩ সালে যখন কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হয়, এরপর ২০০১ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়ন শুল্ক ছাড় দেয়। আমাদের বাণিজ্যের জন্য কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ ইইউ সেটা আমাদের বুঝতে হবে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর