• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৪:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
তথ্যপ্রযুক্তি খাতে করারোপ হচ্ছে না ঢাকায় ব্যাটারিচালিত রিকশা চলতে বাধা নেই টেলিটক, বিটিসিএলকে লাভজনক করতে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ ভারত থেকে ২শ কোচ কেনার চুক্তি বেসরকারি কোম্পানি চালাতে পারবে ট্রেন দেশে মাথাপিছু আয় বেড়ে ২৭৮৪ ডলার ৫ জুন বাজেট অধিবেশন শুরু চালু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার বুদ্ধ পূর্ণিমা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা পাঠ করলেন বিপ্লব বড়ুয়া ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক নিত্যপণ্যের বাজার কঠোর মনিটরিংয়ের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর উত্তরা থেকে টঙ্গী মেট্রোরেলে হবে নতুন ৫ স্টেশন এমপিও শিক্ষকদের জন্য আসছে আচরণবিধি সরকার ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনা উন্নত করতে কাজ করছে: পরিবেশমন্ত্রী বাংলাদেশে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণে আগ্রহী কানাডা মেট্রোরেলে ভ্যাট এনবিআরের ভুল সিদ্ধান্ত ২৫ মে বঙ্গবাজার কমপ্লেক্সের নির্মাণ কাজের উদ্ভোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী সাগরে মাছ ধরা ৬৫ দিন বন্ধ বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর অভিযানে তিনজন নিহত বঙ্গবন্ধু ‘জুলিও কুরি’ পদক নীতিমালা মন্ত্রিসভায় উঠছে

বাংলাদেশকে ৪০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ৪৮ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২২

দশটি অর্থনৈতিক অঞ্চলের সংযোগ সড়ক উন্নয়নে বাংলাদেশকে ৪০ কোটি ডলার ঋণ দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। প্রতি ডলার সমান ১০৩ টাকা ৬৯ পয়সা ধরে এ ঋণের পরিমাণ বাংলাদেশী মুদ্রায় চার হাজার ১৪৭ কোটি টাকা। ঢাকা-জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ চার লেন সড়ককে ১০ লেনের এক্সপ্রেসওয়েতে উন্নীত করার জন্য এডিবির এ ঋণ ব্যবহার করা হবে। এডিবির ঢাকা কার্যালয় থেকে গতকাল পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এডিবি বলছে, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের ‘ইম্প্রুভমেন্ট ঢাকা-জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ রোড ইনটু এক্সপ্রেসওয়ে উইথ সার্ভিস লেইন বোথ সাইড’ প্রকল্প বাস্তবায়নে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। পাবলিক/ প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) ভিত্তিতে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান কোরিয়া ওভারসিজ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট করপোরেশেন এ সড়কের নির্মাণকাজ বাস্তবায়ন করবে। এটা চার লেনের সড়ক ছিল। এটিকে আরো প্রশস্ত করার পাশাপাশি আরো কিছু কাজ করা হবে। সরকার ও কোরিয়ান কোম্পানি যৌথভাবে এ কাজ করবে।

বর্তমানে ঢাকা-জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ রুটে ৮৭ দশমিক ১৮ কিলোমিটার সড়ক চার লেনে উন্নীত অবস্থায় আছে। প্রকল্পটির আওতায় এ সড়ককে ১০ লেনের আন্তর্জাতিক মানের এক্সপ্রেসওয়েতে উন্নীত করা হবে। এখনকার চার লেনের পাশাপাশি ১০ ফুট প্রশস্ত করে দুই পাশে ব্যারিয়ার দিয়ে ইমার্জেন্সি লেন নির্মাণ করা হবে, যা দিয়ে শুধু অ্যাম্বুলেন্স, নিরাপত্তা গাড়ি, ভিআইপিসহ যেকোনো জরুরি কাজে নিয়োজিত গাড়ি চলাচল করবে। এরপর আরো ১৮ থেকে ২৪ ফুট করে ধীরগতির যান চলাচলের জন্য দু’পাশে আলাদা দু’টি করে লেন করা হবে। সব মিলিয়ে একপাশে পাঁচটি সড়ক লেনসহ দু’পাশে ১০ লেনের সড়ক নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছে। দু’পাশের অন্য সড়ক থেকে এক্সপ্রেসওয়ে সড়কে উঠতে ও বের হতে প্রতি ২-৩ কিলোমিটার পর পর আন্ডারপাস ইউটার্ন নির্মিত হবে। এ সড়কটি দেশের ১০টি গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক অঞ্চলে সংযোগ তৈরি করবে।

বেজার হালনাগাদ প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, এখন পর্যন্ত ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়নকাজ শেষ হয়েছে। বিনিয়োগের জন্য প্রস্তুত এসব অর্থনৈতিক অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে- বাগেরহাটে মংলা অর্থনৈতিক অঞ্চল, মৌলভীবাজারে শ্রীহট্ট অর্থনৈতিক অঞ্চল, নারায়ণগঞ্জে মেঘনা অর্থনৈতিক অঞ্চল, মেঘনা ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইকোনমিক জোন, আমান অর্থনৈতিক অঞ্চল ও সিটি অর্থনৈতিক অঞ্চল, মুন্সীগঞ্জে আব্দুল মোনেম অর্থনৈতিক অঞ্চল, গাজীপুরে বে-অর্থনৈতিক অঞ্চল, চট্টগ্রামে কর্ণফুলী ড্রাই ডক ইকোনমিক জোন এবং কিশোরগঞ্জে কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল।

এডিবি বলছে, বাংলাদেশের পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ অথরিটির সাথে সম্মত হওয়া ম্যান্ডেটের পরিধি প্রকল্পের সম্ভাব্যতা, লেনদেনের যথাযথ অধ্যবসায় এবং কাঠামো, দরদাতা সংগ্রহ এবং বাণিজ্যিক ও আর্থিক বন্ধে পৌঁছানোর জন্য আলোচনাকে কভার করে। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সড়ক ও জনপথ বিভাগ প্রকল্পটির বাস্তবায়নকারী সংস্থা।

প্রকল্পের বিষয়ে পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি, পিপিপির অফিসের ম্যান্ডেট নতুন সুযোগের একটি শক্তিশালী পাইপলাইন চিহ্নিত করতে সক্ষমতা বৃদ্ধিকে অন্তর্ভুক্ত করবে এবং বাংলাদেশে আরো দুটি সড়ক পিপিপি প্রকল্প নিরীক্ষণ করবে ঢাকা বাইপাস রোড পিপিপি প্রকল্প, যা এপ্রিল ২০২১-এ আর্থিক সমাপ্তি অর্জন করেছে। রামপুরা-আশুলিয়া-ডেমরা পিপিপি প্রকল্প, যা ২০২২ সালের জানুয়ারিতে বাণিজ্যিকভাবে শেষ হয়েছে।

এডিবির পরামর্শ আঞ্চলিক বৈষম্য পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করার সাথে সাথে সংযোগ এবং লজিস্টিকসে প্রকল্পটি সর্বাধিক লাভ নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে। এটি যানজট কমাতে, ট্র্যাফিক প্রবাহ, নিরাপত্তা উন্নত করতে এবং বৈদ্যুতিক যানবাহন, বৃষ্টির জল সংরক্ষণ ও গ্রিনহাউজ গ্যাস হ্রাস করে এমন জলবায়ু সহনশীল ও ভবিষ্যৎ-প্রমাণিত অবকাঠামো সরবরাহ করতে ব্যক্তিগত খাতের উদ্ভাবন এবং দক্ষতাগুলোও অন্বেষণ করবে।

এডিবি কার্যালয়ের পিপিপি প্রধান এফ ক্লিও কাওয়াওয়াকি বলেছেন, ঢাকা-জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ ১০ লেনের এক্সপ্রেসওয়েটি আরো প্রদর্শন করবে কিভাবে জলবায়ু সহনশীল অবকাঠামো তৈরি করা যায়। অবকাঠামো তৈরিতে বেসরকারি খাতের উদ্ভাবন, দক্ষতা এবং মূলধনকে কাজে লাগানো আমাদের অন্যতম লক্ষ্য।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর