• শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:০৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
এবার চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় জ্বালানি তেল যাবে পাইপ লাইনে কাতারের আমির আসছেন সোমবার রাজস্ব ফাঁকি ঠেকাতে ক্যাশলেস পদ্ধতিতে যাচ্ছে এনবিআর বাংলাদেশে দূতাবাস খুলছে গ্রিস বঙ্গবন্ধু টানেলে পুলিশ-নৌবাহিনী-ফায়ার সার্ভিসের জরুরি যানবাহনের টোল মওকুফ সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীতে আসছেন আরও ৪ লাখ মানুষ ৫০ বছরে দেশের সাফল্য চোখে পড়ার মতো চালের বস্তায় জাত, দাম উৎপাদনের তারিখ লিখতেই হবে মন্ত্রী-এমপির প্রার্থীদের সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ প্রাণী ও মৎস্যসম্পদ উন্নয়নে বেসরকারি খাত এগিয়ে আসুক ফের আশা জাগাচ্ছে লালদিয়া চর কনটেইনার টার্মিনাল ‘মাই লকারে’ স্মার্টযাত্রা আগামী সপ্তাহে থাইল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতির ওপর নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ব্যাংকের আমানত বেড়েছে ১০.৪৩ শতাংশ বঙ্গবাজারে দশতলা মার্কেটের নির্মাণ কাজ শুরু শিগগিরই বেঁচে গেলেন শতাধিক যাত্রী ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস আজ মন্ত্রী-এমপিদের প্রভাব না খাটানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মুজিবনগর দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী

প্রধানমন্ত্রী আজ খুলনা যচ্ছেন, উদ্বোধন করবেন ২৯ উন্নয়ন প্রকল্প

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ২৬ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : সোমবার, ১৩ নভেম্বর, ২০২৩

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সোমবার খুলনায় আসছেন। দুপুর ৩টায় খুলনার ঐতিহাসিক সার্কিট হাউজ মাঠে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিভাগীয় জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেবেন তিনি। এর আগে খুলনা জেলার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে শিল্প, বন্দর ও বিভাগীয় নগরী খুলনায় বিরাজ করছে উত্সবের আমেজ।

নগরীর প্রতিটি সড়কে নির্মাণ করা হয়েছে দুই শতাধিক তোরণ, মোড়ে মোড়ে শোভা পাচ্ছে রংবেরঙের ব্যানার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড ও প্ল্যাকার্ড। সার্কিট হাউজ মাঠের আবাহনী ক্রীড়াচক্র প্রান্তে তৈরি করা হয়েছে নিচে নৌকা ও ওপরে পদ্মা সেতুর আদলে ৯০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৪০ ফুট প্রস্থের সুবিশাল মঞ্চ। এই মঞ্চে অন্তত ৪০০ জন অতিথি বসতে পারবেন। মঞ্চের উচ্চতা সাড়ে ১৩ ফুট।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর খুলনায় আগমন ও সার্কিট হাউজ মাঠের জনসভাকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তিন স্তরের কঠোর নিরাপত্তাবলয় গড়ে তুলেছে। এর মধ্যে রয়েছে জনসভাস্থল, জনসভাস্থলের আশপাশ এবং জনসভাস্থলের বাইরের এলাকা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মহাসমাবেশের আগে  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৯টি মেগা প্রকল্প খুলনাবাসীকে উপহার দেবেন। এর মধ্যে ৪০০ কোটি টাকা ব্যয়ে চলমান ২৪টি প্রকল্প এবং ১০০ কোটি টাকা ব্যয়ে আরো পাঁচটি প্রস্তাবিত প্রকল্প রয়েছে।

খুলনা জেলা প্রশাসন কার্যালয় সূত্র জানায়, উল্লেখযোগ্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে—১৯৭১: গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘরের ভবন নির্মাণ কাজ, সিভিল সার্জন অফিস ও বাসভবন নির্মাণ, ‘৪০টি উপজেলায় ৪০টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ও পাইকগাছা উপজেলায় একটি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন কাজ, খুলনা শিক্ষানবিশি প্রশিক্ষণ দপ্তর সংস্কার ও আধুনিকায়ন কাজ, খুলনায় ১০ তলা ভিত্তিসহ ১০ তলা ভবন (সিভিল, স্যানিটারি, ইন্টারনাল রোড, সার্ফেস ড্রেন

এবং বৈদ্যুতিক কাজ), বিটাক, খুলনা কেন্দ্রে ১০ তলা ভিত্তিসহ ১০ তলাবিশিষ্ট নারী হোস্টেল ভবন নির্মাণ, উপজেলায় রেজিস্ট্রি ও সাবরেজিস্ট্রি অফিস ভবন নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় পাইকগাছা উপজেলা সাবরেজিস্ট্রি অফিস ভবন নির্মাণকাজ, ‘সুন্দরবনে পরিবেশবান্ধব পর্যটন (ইকোট্যুরিজম) সুবিধা সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন’ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত শেখেরটেক ইকোট্যুরিজম কেন্দ্র, ডুমুরিয়া টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাডেমিক কাম প্রশাসনিক ও ওয়ার্কশপ ভবন নির্মাণকাজ, ভদ্রা নদীর ওপর ৩১৫ দশমিক ৩০ মিটার লম্বা পিসি গার্ডার ব্রিজ নির্মাণকাজ, গোপালগঞ্জ, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের (প্রথম সংশোধিত) আওতায় দৌলতপুর, খুলনাতে অতিরিক্ত পরিচালক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খুলনা অঞ্চল, খুলনার ষষ্ঠতলাবিশিষ্ট নবনির্মিত ভবন এবং দৌলতপুর কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট খুলনার চতুর্থতলা ভিত্তির ওপর চতুর্থতলা ছাত্র হোস্টেল নির্মাণ চইনেজে কুড়ুলিয়া নদীর ওপর ৭৪৮ দশমিক ৯০ মিটার দীর্ঘ ব্রিজ। এছাড়াও নগরীর মাথাভাঙ্গা এলাকায় ‘খুলনা সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন’ প্রকল্পের আওতায় স্যানিটারি ল্যান্ড ফিল নির্মাণ এবং দিঘলিয়া টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের একাডেমিক কাম প্রশাসনিক ও ওয়ার্কশপ ভবন নির্মাণকাজসহ মোট পাঁচটি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমডি এ বাবুল রানা জানান, খুলনার জনসভায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলার ১০ লক্ষাধিক মানুষের সমাগম ঘটানোর প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। জনসভা শুরুর অনেক আগেই খুলনা মহানগরীর রাজপথে লাখো মানুষের ঢল নামবে।

এর আগে চলতি বছরের ৬ জানুয়ারি ব্যক্তিগত সফরে খুলনায় এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি খুলনা মহানগরীসংলগ্ন দিঘলিয়ার নগরঘাট এলাকায় তার মা বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে কেনা পাট গোডাউন পরিদর্শন করেন এবং নিজের চাচাবাড়িতে (বঙ্গবন্ধুর ছোট ভাই শেখ আবু নাসের) পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সময় কাটান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর