• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:২৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
এবার চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় জ্বালানি তেল যাবে পাইপ লাইনে কাতারের আমির আসছেন সোমবার রাজস্ব ফাঁকি ঠেকাতে ক্যাশলেস পদ্ধতিতে যাচ্ছে এনবিআর বাংলাদেশে দূতাবাস খুলছে গ্রিস বঙ্গবন্ধু টানেলে পুলিশ-নৌবাহিনী-ফায়ার সার্ভিসের জরুরি যানবাহনের টোল মওকুফ সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীতে আসছেন আরও ৪ লাখ মানুষ ৫০ বছরে দেশের সাফল্য চোখে পড়ার মতো চালের বস্তায় জাত, দাম উৎপাদনের তারিখ লিখতেই হবে মন্ত্রী-এমপির প্রার্থীদের সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ প্রাণী ও মৎস্যসম্পদ উন্নয়নে বেসরকারি খাত এগিয়ে আসুক ফের আশা জাগাচ্ছে লালদিয়া চর কনটেইনার টার্মিনাল ‘মাই লকারে’ স্মার্টযাত্রা আগামী সপ্তাহে থাইল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতির ওপর নজর রাখার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ব্যাংকের আমানত বেড়েছে ১০.৪৩ শতাংশ বঙ্গবাজারে দশতলা মার্কেটের নির্মাণ কাজ শুরু শিগগিরই বেঁচে গেলেন শতাধিক যাত্রী ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস আজ মন্ত্রী-এমপিদের প্রভাব না খাটানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর মুজিবনগর দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী

নতুন মেগা প্রকল্পে অর্থায়ন করবে চীন

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ৪০ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : বুধবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশের কর্ণফুলী টানেলসহ বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্পে সহায়তা করছে চীন। আগামী দিনে আরও নতুন মেগা প্রকল্পে অর্থায়ন করা হবে। মঙ্গলবার পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নানের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে মন্ত্রীর দপ্তরে সাক্ষাৎ অনুষ্ঠান হয়।

এ সময় রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের জিডিপি (মোট দেশজ উৎপাদন) প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশের বেশি হওয়াকে বিস্ময়কর বলে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে সহযোগিতার পাশাপাশি জনগণের জীবনমান উন্নয়নেও কাজ করবে চীন।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনের সহায়তা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মিয়ানমারের বাস্তচ্যুত ১ দশমিক ২ মিলিয়ন রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী নিয়ে বাংলাদেশ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। এই সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে ফ্যাসিলিটেটর (সমন্বয়কারী) হিসাবে কাজ করছে চীন। আশা করছি, দ্রুত এই সমস্যার সমাধান হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে রাষ্ট্রদূত বলেন, কর্ণফুলী টানেলসহ বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্পে সহায়তা করছে চীন। আগামী দিনে আরও নতুন মেগা প্রকল্পে অর্থায়ন করা হবে। চীন কোভিড মোকাবিলা করছে। এরপরও বাংলাদেশে বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে কাজ করে যাচ্ছে।

আগামী মাসে বাংলাদেশ বিজনেস সামিট অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে চীনের ব্যবসায়ীরা অংশ নেবেন। বাংলাদেশের অভীষ্ট ২০৪১ অর্জন, স্মার্ট বাংলাদেশ এবং সোনার বাংলা গঠনে সব সময় পাশে থাকবে চীন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের আইসিটি খাতে ব্যাপক উন্নয়নের সুযোগ রয়েছে। এ খাতেও সহায়তা দেবে চীন। সেই সঙ্গে খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ এবং কৃষিভিত্তিক শিল্পে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করা হবে।

চীনের সঙ্গে ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট (এফটিএ) বিষয়ে কোনো অগ্রগতি আছে কি না জানতে চাইলে ওয়েন বলেন, আমরা এই অ্যাগ্রিমেন্ট করতে প্রস্তুত আছি। এখন কিছু প্রক্রিয়াগত কার্যক্রম চলছে। তিস্তা ব্যারেজ প্রকল্পে চীনের অর্থায়ন প্রসঙ্গে বলেন, এ নিয়ে কাজ চলছে।

সাক্ষাৎ শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, তিস্তা প্রকল্প নিয়ে চীনের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হচ্ছে। চীনের সঙ্গে আমাদের যে বন্ধুত্ব তৈরি হয়েছে, সিটি আরও ওপরে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন চীনের রাষ্ট্রদূত। মন্ত্রী বলেন, ‘বন্ধুত্বের শ্রেষ্ঠ পরিচয় হলো ব্যবসা-বাণিজ্য ও সহায়তা নিয়ে পাশে দাঁড়ানো। সেটি করছে চীন। সেই সঙ্গে এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে চীনের উন্নয়ন ও অগ্রগতি আমাদের উৎসাহিত করছে। আমরা পারস্পরিক সহায়তা বৃদ্ধি এবং একসঙ্গে বন্ধুত্বকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে কথা বলেছি।’

বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের নতুন রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন ২৮ ডিসেম্বর ঢাকায় আসেন। তিনি ১৬তম রাষ্ট্রদূত হিসাবে সাবেক রাষ্ট্রদূত লি জিমিংয়ের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর