• মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০৪:০১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
তথ্যপ্রযুক্তি খাতে করারোপ হচ্ছে না ঢাকায় ব্যাটারিচালিত রিকশা চলতে বাধা নেই টেলিটক, বিটিসিএলকে লাভজনক করতে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ ভারত থেকে ২শ কোচ কেনার চুক্তি বেসরকারি কোম্পানি চালাতে পারবে ট্রেন দেশে মাথাপিছু আয় বেড়ে ২৭৮৪ ডলার ৫ জুন বাজেট অধিবেশন শুরু চালু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার বুদ্ধ পূর্ণিমা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা পাঠ করলেন বিপ্লব বড়ুয়া ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক নিত্যপণ্যের বাজার কঠোর মনিটরিংয়ের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর উত্তরা থেকে টঙ্গী মেট্রোরেলে হবে নতুন ৫ স্টেশন এমপিও শিক্ষকদের জন্য আসছে আচরণবিধি সরকার ই-বর্জ্য ব্যবস্থাপনা উন্নত করতে কাজ করছে: পরিবেশমন্ত্রী বাংলাদেশে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণে আগ্রহী কানাডা মেট্রোরেলে ভ্যাট এনবিআরের ভুল সিদ্ধান্ত ২৫ মে বঙ্গবাজার কমপ্লেক্সের নির্মাণ কাজের উদ্ভোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী সাগরে মাছ ধরা ৬৫ দিন বন্ধ বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর অভিযানে তিনজন নিহত বঙ্গবন্ধু ‘জুলিও কুরি’ পদক নীতিমালা মন্ত্রিসভায় উঠছে

দল ও দেশের জন্য নিবেদিত ছিলেন মোছলেম উদ্দিন : সংসদে প্রধানমন্ত্রী

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ৪৪ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩

চট্টগ্রাম-৮ আসনের সদ্য প্রয়াত সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমদকে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মোছলেম উদ্দিন দল ও দেশের জন্য নিবেদিত প্রাণ ছিলেন। চিরদিন তাকে জাতি স্মরণ করবে।

মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদে আনা শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনাকালে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগদলীয় সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিনের মৃতুতে সংসদে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। তার প্রতি সম্মান জানিয়ে সংসদে এক মিনিট নীরবতা পালন ও আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মোনাজাত করা হয়। পরে রেওয়াজ অনুযায়ী সংসদের বৈঠক মুলতবি করা হয়।

মোছলেম উদ্দিনকে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অসুস্থ থাকা সত্ত্বেও কিছুদিন আগে চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তাকে সভাপতি করেছি। তবে আমারও একটি দ্বিধা ছিল তিনি বেঁচে থাকবেন কি না। কারণ তার অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। আমি প্রতিনিয়ত সেই খবর পাচ্ছিলাম। গতকালও খবর নিয়েছি, খুব খারাপের দিকে চলে যাচ্ছেন। শেষ পর্যন্ত তিনি আমাদের ছেড়ে চলেই গেলেন।

এ সংসদের সদস্য হতে পেরে তিনি খুবই আনন্দিত ছিলেন উল্লেখ করে সংসদ নেতা বলেন, আমরা তাকে এক দুবার নমিনেশন দিয়েছিলাম। তখন হয়তো জয়ী হতে পারেননি। পরে নমিনেশন পেয়ে জয়ী হয়ে এলেন। তিনি খুবই খুশি ছিলেন, যে তিনি সংসদ সদস্য হতে পেরেছেন। জনগণের কথা সংসদে বলতে পারবেন। আজ তিনি না ফেরার দেশে চলে গেছেন।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ একজন কর্মীকে আমরা হারিয়েছি। তিনি আমাদের দলের খারাপ সময়ে যেভাবে পাশে ছিলেন জাতীয় স্বার্থেও যথেষ্ট অবদান রেখে গেছেন। অসুস্থ হলেও আমার চট্টগ্রামের জনসভার আয়োজন করতে দিনরাত পরিশ্রম করেছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আন্তরিকতা ও দলের প্রতি কর্তব্যবোধ, দেশের মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ এটাই ছিল সব থেকে বড় কথা। আওয়ামী লীগের জন্য এটা বিরাট ক্ষতি। ছোটবেলা থেকে চট্টগ্রামের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ। চট্টগ্রামের বহু নেতা চলে গেছেন।

চলতি সংসদে আওয়ামী লীগের ২১ জন সদস্যসহ ২৩ জন মারা গেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, মানুষ মরণশীল। একদিন সবাইকে চলে যেতে হবে। তবে তার কর্মফলটাই মানুষ স্মরণ করবে।

প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও শোক প্রস্তাবের ওপর তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, আওয়ামী লীগদলীয় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, সামশুল হক চৌধুরী, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এবং জাতীয় পার্টির আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, কাজী ফিরোজ রশীদ ও মসিউর রহমান রাঙ্গা বক্তব্য দেন। মোছলেম উদ্দিন আহমদ সোমবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর