• রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৯:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
রবিবার শুরু হচ্ছে ডিসি সম্মেলন, লক্ষ্য ‘দক্ষ ও স্মার্ট’ প্রশাসন আস্থার প্রতিদান দেবেন, নতুন প্রতিমন্ত্রীদের আশ্বাস জিয়াউর রহমান, সায়েম ও মোশতাকের ক্ষমতা দখল ছিল বেআইনি গণমাধ্যমকে আরো শক্তিশালী করতে প্রস্তুত সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী জ্বালানি তেলের স্বয়ংক্রিয় মূল্য নির্ধারণের প্রজ্ঞাপন জারি ঈদযাত্রায় ট্রেনের বগি বাড়ানো হবে: রেলমন্ত্রী আহতদের চিকিৎসার দায়িত্ব সরকারের ‘দোষীদের শাস্তির আওতায় আনতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী’ প্রকৃত দাবিদারের দাবি স্বল্প সময়ে বুঝিয়ে দিন ভবনটিতে ‘ফায়ার এক্সিট’ ছিল না প্রধানমন্ত্রীর ক্ষোভ পাইপলাইনে তেল খালাসের যুগে বাংলাদেশ কৃষকদের ‘শিক্ষিত’ করতে ৬৫০ কোটির প্রকল্প দুর্বল ব্যাংক একীভূত আগামী বছর এক কার্ডেই মিলবে রোগীর সব তথ্য, মার্চের মধ্যে শুরু রাজাকারের পূর্ণাঙ্গ তালিকা মার্চেই নতুন মন্ত্রীদের শপথ আজ, বিবেচনায় তিনটি বিষয় বিমা ব্যবসায় নামছে পাঁচ ব্যাংক অপরাধের নতুন ধরন মোকাবিলায় পুলিশকে প্রস্তুতি নিতে হবে: শেখ হাসিনা বেইলি রোডে আগুনের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক পতেঙ্গা কন্টেনার টার্মিনাল চালু হচ্ছে এপ্রিলে

তৃণমূল বিএনপির ২৩০ আসনে প্রার্থী ঘোষণা

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ১৪ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২৩

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৩০ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করেছে তৃণমূল বিএনপি। রাজধানীর তোপখানা রোডের দলীয় কার্যালয়ে বুধবার সন্ধ্যায় প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা করেন দলটির মহাসচিব তৈমূর আলম খন্দকার। বাকি আসনগুলোতে পরে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হবে বলেও জানান তিনি। এ সময় দলের চেয়ারপারসন শমসের মবিন চৌধুরী ও নির্বাহী চেয়ারপারসন অন্তরা সেলিমা হুদা উপস্থিত ছিলেন না। দলটির মুখপাত্র সালাম মাহমুদ বলেছেন, আজ আরও ৫০টি আসনে প্রার্থিতা ঘোষণা করা হবে।

ঘোষিত প্রার্থীদের মধ্যে পাঁচজন সাবেক সংসদ-সদস্য রয়েছেন। তালিকায় থাকা সাবেক সংসদ-সদস্যরা হলেন-মৌলভীবাজার-২ আসনে এমএম শাহীন, লক্ষ্মীপুর-১ আসনে এমএ আউয়াল, সাতক্ষীরা-৪ আসনে এইচএম গোলাম রেজা, ঝিনাইদহ-২ আসনে নুরুদ্দিন আহমেদ ও মেহেরপুর-২ আসনে আবদুল গণি।
দলটির চেয়ারপারসন শমসের মবিন চৌধুরী সিলেট-৬ (বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ) আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে জানিয়েছে তৃণমূল বিএনপি। বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হকের কাছে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসন থেকে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন দলটির মহাসচিব তৈমূর আলম খন্দকার।

ফেব্রুয়ারিতে ‘সোনালি আঁশ’ প্রতীক পেয়ে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধন পাওয়ার ৩ দিন পর তৃণমূল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা নাজমুল হুদা মারা যান। এরপর দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন নাজমুল হুদার মেয়ে অন্তরা হুদা। ১৯ সেপ্টেম্বর দলটিতে যোগ দিয়েই চেয়ারপারসন নির্বাচিত হন শমসের মবিন চৌধুরী ও মহাসচিব হিসাবে দায়িত্ব পান তৈমূর আলম খন্দকার।

মনোনয়ন পেয়েছেন যারা : জয়পুরহাট-১ আসনে মো. মাসুম, বগুড়া-১ আব্দুল মান্নান ও এনএম আবু জিহাদ, বগুড়া-২ মো. বজলুর রহমান, বগুড়া-৩ আব্দুল মোত্তালেব, বগুড়া-৪ মো. জালাল উদ্দিন ও মো. আব্দুল ওহাব, বগুড়া-৫ মাহবুব আলী, বগুড়া-৬ মাওলানা মো. নজরুল ইসলাম ও মো. ছালেহীন ইসলাম সাজ্জাদ, বগুড়া-৭ এনামুল হক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ মো. মুজিবুর রহমান, নওগাঁ-৩ মো. সোহেল কবীর চৌধুরী, নওগাঁ-৬ মো. পিকে আবদুর রব, রাজশাহী-১ মো. জামাল খান, রাজশাহী-২ এসএম আরমান পারভেজ, নাটোর-১ মো. ইমরান আলী, নাটোর-২ মো. মজনু মিয়া, নাটোর-৩ মো. আবুল কালাম আজাদ, নাটোর-৪ আবদুল খালেক সরকার, সিরাজগঞ্জ-২ মোস্তাফিজুর রহমান ও সোহেল রানা, সিরাজগঞ্জ-৩ নাদিমুল ইসলাম মাহমুদ, সিরাজগঞ্জ-৪ মো. ওমর ফারুক, সিরাজগঞ্জ-৫ মহসিন আলম, সিরাজগঞ্জ-৬ তারেকুল ইসলাম, পাবনা-১ জয়নুল আবেদীন, পাবনা-২ আবুল কালাম আজাদ, পাবনা-৩ ওয়াসিম সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ মাইনুল হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ মুফতি হাবিবুর রহমান, কুমিল্লা-১ মহসিন আলম ভূঁইয়া ও সুলতানা জিসান উদ্দিন, কুমিল্লা-২ মাইনুদ্দিন, কুমিল্লা-৪ মো. মাহবুবুল আলম, কুমিল্লা-৫ হাজী হোসেন, কুমিল্লা-৬ জয় ভৌমিক ও নাসিমা সুলতানা হ্যাপি, কুমিল্লা-৭ সজল কুমার কর, কুমিল্লা-১০ জামাল উদ্দিন, চাঁদপুর-২ কবির হোসেন ও শাহজাহান, চাঁদপুর-৪ মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন মন্টু, হাজি সেলিম, আব্দুল কাদির তালুকদার, চাঁদপুর-৫ টিপু মজুমদার, ফেনী-১ অধ্যাপক শাহজাহান সাজু, ফেনী-২ আমজাদ হোসেন সবুজ, ফেনী-৩ আজিম উদ্দিন আহমেদ, নোয়াখালী-১ সৈয়দ আহমদ ও নাসির উদ্দিন, নোয়াখালী-২ দেলু মিয়া, নোয়াখালী-৪ মুজক্কের বারী, নোয়াখালী-৫ নাসির উদ্দিন, নোয়াখালী-৬ বায়েজীদ, লক্ষ্মীপুর-১ আউয়াল, লক্ষ্মীপুর-২ লুৎফুল্লাহিল করিম চৌধুরী ও আবদুল্লাহ আল মাসুদ, চট্টগ্রাম-২ জানে আলম, চট্টগ্রাম-৩ মো. নাঈম হাসান, চট্টগ্রাম-৪ খোকন চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৫ নাজিম উদ্দিন ও মাসুদুল আলম, চট্টগ্রাম-৬ ফয়জুল্লাহ ও ইয়াহিয়া জিয়া চৌধুরী, চট্টগ্রাম-৭ খোরশেদ আলম, চট্টগ্রাম-৮ সন্তোষ শর্মা, চট্টগ্রাম-৯ সুজীত সরকার, চট্টগ্রাম-১০ ফেরদাউস বশীর, চট্টগ্রাম-১১ দীপক কুমার পালিত, চট্টগ্রাম-১২ রাজীব চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৩ মকবুল আহম্মেদ চৌধুরী সাদাদ, চট্টগ্রাম-১৪ রাজীব দাস, চট্টগ্রাম-১৫ মোস্তাক আহম্মেদ সবুজ, চট্টগ্রাম-১৬ ওসমান গনী ও মমতাজুর হক চৌধুরী, কক্সবাজার-১ মুহাম্মদ আলী আকবর, কক্সবাজার-২ আকবর খান, কক্সবাজার-৩ অধ্যক্ষ মুহাম্মদ সানাউল্লাহ, কক্সবাজার-৪ মুজিবুর হক মুজিব, খাগড়াছড়িতে উশ্যেপ্রু মারমা ও চিত্র বিকাশ চাকমা, রাঙ্গামাটিতে শাহ হাফেজ মিজানুর রহমান, টাঙ্গাইল-১ জাকির হোসেন, টাঙ্গাইল-২ মাহাবুবুর রহমান খান, টাঙ্গাইল-৩ ইউজিন নকরেশ, টাঙ্গাইল-৪ শহিদুল ইসলাম, টাঙ্গাইল-৬ আব্দুর রাজ্জাক শাহজাদা, টাঙ্গাইল-৭ আব্দুর রহিম মিয়া, টাঙ্গাইল-৮ পারুল, কিশোরগঞ্জ-২ আহসানুল্লাহ, কিশোরগঞ্জ-৫ সোহরাব হোসেন, মানিকগঞ্জ-১ ইঞ্জিনিয়ার শেখ শাহিন রহমান, মানিকগঞ্জ-২ মো. জসিম উদ্দীন, মানিকগঞ্জ-৩ মোয়াজ্জেম হোসেন খান মজলিশ, মুন্সীগঞ্জ-১ অ্যাডভোকেট অন্তরা সেলিমা হুদা, মুন্সীগঞ্জ-২ জাহানুর রহমান সওদাগর, মুন্সীগঞ্জ-৩ আরাফাত আশওয়াদ ইসলাম, ঢাকা-১ মুফিদ খান, ঢাকা-২ সালাম মাহমুদ, ঢাকা-৩ মো. ইমান আলী ইমন, ঢাকা-৪ ড. খন্দকার এমদাদুল হক ও মো. রফিকুল ইসলাম, ঢাকা-৫ আব্দুল হামিদ হৃদয়, ঢাকা-৬ এসএম আনোয়ার হোসেন অপু, কাজী সিরাজুল ইসলাম, মো. জহিরুল ইসলাম, ঢাকা-৭ সৈয়দা নুরুন নাহার, ঢাকা-৮ এমএ ইউসূফ ও আশরাফ আলী হাওলাদার, ঢাকা-৯ রুবিনা আক্তার রুবি ও কামাল হোসেন, ঢাকা-১০ শাহানুর রহমান, ঢাকা-১১ শেখ মোস্তাফিজুর রহমান, ঢাকা-১২ নাঈম হাসান, ঢাকা-১৩ এসএম আশরাফ, ঢাকা-১৪ নাজমুল ইসলাম, ঢাকা-১৫ অধ্যাপক এনায়েতুল ইসলাম, ঢাকা-১৬ এনায়েতুর আব্দুর রহিম, ঢাকা-১৭ শফিকুল বাশার, ঢাকা-১৮ ড. সিরাজুল ইসলাম ও মো. মফিজুর রহমান, ঢাকা-১৯ মাহবুবুল আলম, ঢাকা-২০ অধ্যক্ষ আব্দুল হাবিব, গাজীপুর-১ চৌধুরী ইরাজ আহমেদ সিদ্দিকী ও আব্দুল জাব্বার সরদার, নারায়ণগঞ্জ-১ তৈমূর আলম খন্দকার, নারায়ণগঞ্জ-২ কেএম আবু হানিফ হৃদয়, নারায়ণগঞ্জ-৩ মো. চান মিয়া ও আফরোজা বেগম হ্যাপি, নারায়ণগঞ্জ-৪ অ্যাডভোকেট আলী হোসেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ ভাসানী ভূঁইয়া।

সূত্র: যুগান্তর


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর