• বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
ঢাকা-রোম ফ্লাইট: সহযোগিতার আশ্বাস ইতালির রাষ্ট্রদূতের ভারত সীমান্তে চালু হচ্ছে আরেকটি স্থলবন্দর ২৬৩ জন সাংবাদিকের জন্য ২ কোটি ৩ লাখ টাকা অনুমোদন শাহজালাল বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল: এপ্রিলেই শেষ শতভাগ কাজ বাণিজ্যমেলায় ৩৯১ কোটি টাকার রপ্তানি আদেশ বাংলাদেশের সঙ্গে যৌথ প্রতিরক্ষা সামগ্রী উৎপাদনে যেতে চায় ভারত দই বিক্রেতা জিয়াউল হকের স্বপ্ন পূরণের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ইউরোপ জয় বাংলাদেশ ও ঘানা ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে সম্মত একুশ মাথা নত না করতে শিখিয়েছে ভাষাশহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা শূন্য পদে দ্রুত নিয়োগে জনপ্রশাসনের তাগিদ কক্সবাজার সুগন্ধা সৈকতকে ‘বঙ্গবন্ধু বিচ’ নামকরণের নির্দেশ পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারত দুই শিশুর মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে আইইডিসিআর মনোনয়ন বৈধ সব প্রার্থীর শ্রদ্ধা ও স্মরণে প্রস্তুত কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার পরিবর্তন আসছে বিধিমালা ও আচরণবিধিতে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে অংশগ্রহণে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশ স্মার্ট ভূমিসেবা বাস্তবায়নে ১০০ দিনের কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে

এ মাসেই বেসরকারিভাবে জ্বালানি আমদানি উন্মুক্ত

সিরাজগঞ্জ টাইমস / ৪০ বার পড়া হয়েছে।
সময় কাল : সোমবার, ২ জানুয়ারী, ২০২৩

বেসরকারি খাতে জ্বালানি তেল আমদানি, বিপণন ও মজুদের বিষয়টি চলতি মাসেই উন্মুক্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, এসংক্রান্ত নীতিমালা করা হয়েছে। জানুয়ারি মাসেই চূড়ান্ত ঘোষণা দিতে পারেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল রবিবার বিদ্যুৎ ভবনে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কম্পানি লিমিটেডের (ডিপিডিসি) স্মার্ট গ্রিড পাইলট প্রকল্পের অংশীজনদের ওয়ার্কশপে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ডিপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) বিকাশ দেওয়ানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎসচিব হাবিবুর রহমান। প্রতিমন্ত্রী বলেন, জ্বালানি তেল উন্মুক্ত করে দেওয়ার পর বিদ্যুৎ বিতরণও বেসরকারি খাতে ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা আছে। নসরুল হামিদ বলেন, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খোলাবাজারের ওপর ছেড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এতে প্রতিযোগিতা তৈরি হবে। বিশ্ববাজারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দাম সমন্বয় হবে। সেই সঙ্গে সেবাও উন্নত করতে হবে। যত বেশি নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দেওয়া যাবে, তত বেশি আয় করা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, হাতিরঝিলে, বিমানবন্দরের খোলা জায়গায় সৌর বিদ্যুৎ প্যানেল করা যেতে পারে। এসব কারণে স্মার্ট গ্রিডের গুরুত্ব অনেক। স্মার্ট গ্রিড পলিসি তৈরি করতে হবে। সেই সঙ্গে সচেতনতাও বাড়াতে হবে। তবে তার আগে নিজেদের কর্মীদের নিবিড় প্রশিক্ষণ দেওয়া দরকার। বিদ্যুৎ খাতের প্রতিষ্ঠানগুলোকে আর্থিকভাবে স্বনির্ভর হতে হবে বলেও উল্লেখ করেন নসরুল হামিদ।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘স্মার্ট গ্রিডে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডকে (বিপিডিবি) এগিয়ে থাকা উচিত ছিল, কিন্তু ডেসকো, নেসকো ও ডিপিডিসি এগিয়ে আছে। বিপিডিবিকে আরো গুরুত্ব দিয়ে স্মার্ট গ্রিডের কাজ করার পরামর্শ দেন তিনি। ’

বিদ্যুৎসচিব হাবিবুর রহমান বলেন, ‘২০২১ সালের মার্চে শতভাগ বিদ্যুৎ ঘোষণার পর থেকেই আমরা স্মার্ট গ্রিড ডিস্ট্রিবিউশন ও স্মার্ট প্রি-পেইড মিটারের কাজটি বাস্তবায়ন করছি। বিতরণকারী কম্পানিগুলোর মধ্যে স্মার্ট গ্রিড ডিস্ট্রিবিউশনে সবচেয়ে অগ্রগামী ডেসকো। ডিপিডিসি কোয়ালিটি ইলেকট্রিসিটি বিতরণ করতে চায়। ডিপিডিসিও অতি শিগগিরই স্মার্ট ডিস্ট্রিবিউশনে চলে যাবে। ’

তিনি বলেন, ‘রাজধানীতে ডিপিডিসি ও ডেসকো—এই দুটি প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎ বিতরণ করছে। তাদের মধ্যে সমন্বয় থাকবে। তারা সমন্বয় করে কাজ করবে, সেটাই তো আমরা চাই। ’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর